আওয়ামী লীগের নতুন সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা

Taiyabur Rahman
By Taiyabur Rahman অক্টোবর ২৫, ২০১৬ ২২:৫৫

আওয়ামী লীগের নতুন সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা

 

তৈয়বুর রহমান টনি নিউ ইর্য়ক থেকেঃ

সব জল্পনাকল্পনার অবসান ঘটিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে রদবদল এসেছে। সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে বিদায় নিয়ে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হলেন পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির রাজনীতিক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। অন্যদিকে যোগাযোগমন্ত্রী হিসেবে মাঠঘাটে ছুটে বেড়ানো নেতা ওবায়দুল কাদের পেলেন সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব।tony_quder

জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে পুনঃনির্বাচিত হওয়ায় এবং ওবায়দুল কাদের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় উভয় নেতাকে জানাচ্ছি আন্তরিক  অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আরো শক্তিশালী ও আরো গতিশীলতা লাভ করবে ইনশাল্লাহ। দেশের গণতান্ত্রিক ধারা বিকাশে উভয় নেতা অনন্য ভূমিকা পালন করবেন। আমি আনন্তরিক ভাবে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সুস্বাস্থ্য দীর্ঘায়ু এবং উত্তরোত্তর সাফল্য ও সমৃদ্ধ কামনা করছি। তবে শেখ হাসিনা এবার নেতৃত্বের পদ ছেড়ে দেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু নেতারা তাকেই দলের নেতৃত্বে দেখতে চেয়েছেন। যেটা দলকে আরোও শক্তিশালী রাখবে দীর্ঘদিন।

সৈয়দ আশরাফ বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অত্যন্ত বিশস্ত ও কাছের মানুষ হিসেবে দলের দুর্দিনে সংগঠনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছেনl তবুও তৃণমূলের নেতা কর্মীদের আকাঙ্খা তিনি সঠিকভাবে পূরণ করতে পারেননিl যে কোনো কারণেই হউক দলকে সুসংগঠিত করতে তিনি বের্থ হয়েছেন বলে অনেকে অভিযোগ করে থাকেন নেতা কর্মীরাl মাঝে মাঝে তিনি এমন বেফাষ কর্তা-বার্তা বলতেন যা সরকারকে বিব্রত অবস্হায় পরতে হয়। তারপার তিনি একজন ভাল মানুষ। যার কারণেই দলীয় সভানেত্রী অনেক ভেবে চিনতে জনাব ওবায়দুল কাদেরের উপর এক বিরাট দায়িত্ব দিয়েছেনl বাংলাদেশের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে দলকে চাঙ্গা করে তোলা এখন আপনার সবচেয়ে বড় দায়িত্বl

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আগামী নির্বাচনে জয়ী হওয়ার লক্ষে কাজ করার জন্য আপনার উপর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছেl আমার দৃঢ় বিশ্বাস আপনি বঙ্গবন্ধু কন্যার এই আশা পূরণ করতে সামর্থ হবেনl স্বাধীনতার পর পর ছাত্রলীগের দফতর সম্পাদক থেকে শুরু করে এক দীর্ঘ রাজনৈতিক পথ আপনি অতিক্রম করে এসেছেনl জেল জুলুম সকল প্রকার অন্যায়ের বিরুদ্ধে দলের পক্ষ হয়ে করেছেন সংগ্রামl পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের পরবর্তীতে ঢাকায় গড়ে তোলা ছাত্রলীগের গোপনীয় আন্দোলনে আপনি ছিলেন সক্রিয়l সারা বাংলাদেশে ছড়িয়ে আছে আপনার বিশ্বস্থ নেতা কর্মীl এরা অনেকেই একসময় আপনার সাথে করেছে ছাত্রলীগ, করেছে আওয়ামী লীগ, করেছে সংগ্রামl কিন্তু দুর্ভাগ্য হলেও সত্য রাজনীতির এই দাবা খেলায় এদের অনেকেই নানা কারণে ছিটকে পড়েছেনl বিষয়টি আপনি অবগত আছেন বলেই আমার ধারণাl জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী পরীক্ষিত এসকল নেতা কর্মীদের দলীয় সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার অনুমতিতে দলে ফিরিয়ে আনুনl

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আগামী ২০১৯ নির্বাচনে জয়ী হওয়ার লক্ষে কাজ করার জন্য আপনার উপর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছেl আমার দৃঢ় বিশ্বাস আপনি বঙ্গবন্ধু কন্যার এই আশা পূরণ করতে সামর্থ হবেনl নুতন আর পুরাতনের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরী করে আওয়ামী লীগকে একটি শক্তিশালী রাজনৈতিক দল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করাই হবে এখন আপনার কাজl তৃণমূলের নেতা কর্মীরা আপনার দিকে চেয়ে আছেl বিলম্ব না করে তাদের ডাকে সারা দিনl দুঃসময়ে ছাত্রলীগকে যখন সফল নেতৃত্ব দিতে সামর্থ হয়েছেন আজ এই সুসময়ে আওয়ামী লীগকে নেতৃত্ব দেওয়া নিশ্চই কঠিন হওয়ার কথা নয়l সততা, আন্তরিকতা ও ভালোবাসাই হতে হবে এখন আপনার চলার পথের পাথেয়l

একদিকে মন্ত্রী অন্যদিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এই দুটোকেই সমান তালে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সহজ নয়l কারণ রীতিমতো মন্ত্রণালয়ের কাজ কর্মে সময় দেওয়া সাথে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কর্মতৎপরতা তদারকি করা অবশ্যই কঠিন বেপারl আসছে এই সাংগঠনিক পরীক্ষায় পাশ ফেল করা এখন আপনার হাতেl বঙ্গবন্ধু কন্যার দেওয়া এই পরীক্ষার ফলাফলে ইতিবাচক প্রভাব আনতে হলে শুরুতেই মিডিয়ায় কথা বলার ক্ষেত্রে আনতে হবে পরিবর্তনl আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আর আর সরকারের মন্ত্রী যে এক কথা নয় তা আপনি ভালো করেই জানেন এবং বুঝেনl সুতরাং বিষয়টির প্রতি লক্ষ্য রেখে এগিয়ে গেলে জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া এই বিরাট দায়িত্ব পালনে আপনি সফল হতে পারবেন ইনশাল্লাহl কারণ আপনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের এক পরীক্ষিত সৈনিকl

জনাব ওবায়দুল কাদের নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার একটি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মোশারফ হোসেন কলকাতার ইসলামিয়া কলেজে অধ্যয়ন করেন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি সহপাঠী ছিলেন।তাঁর মা ফাজিলাতুননেসা একটি উন্নতচরিত্র মুসলিম পরিবারের সন্তান। সর্বদা একজন প্রশংসনীয় ছাত্র, জনাব ওবায়দুল কাদের বসুরহাট এ এইচ সি সরকার থেকে ম্যাট্রিক উচ্চ বিদ্যালয় ও প্রথম বিভাগ পেয়েছিলেন। তিনি রাষ্ট্রবিজ্ঞান সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রী অর্জন করেন। তার স্ত্রী  ইসরাতুননেসা কাদের বিশিষ্ট আইনজীবী।

 

Taiyabur Rahman
By Taiyabur Rahman অক্টোবর ২৫, ২০১৬ ২২:৫৫
Write a comment

No Comments

No Comments Yet!

Let me tell You a sad story ! There are no comments yet, but You can be first one to comment this article.

Write a comment
View comments

Write a comment

Your e-mail address will not be published.
Required fields are marked*

সর্বশেষ খবর

আজকের দিন-তারিখ

  • বৃহস্পতিবার ( রাত ৮:৫৪ )
  • ২৩ নভেম্বর, ২০১৭
  • ৫ রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯
  • ৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ ( হেমন্তকাল )

বাংলা ক্যালেন্ডার

IMG_11152014_10_DEBDUT!