ডিস্কো রেকর্ডিং এর কর্ণধার শাহীন রহমানের দিন কাটছে রিহাব সেন্টারে কৃত্তিম শ্বাস-প্রশ্বাস যন্ত্রে

MD Majumder
By MD Majumder জুলাই ২১, ২০১৪ ০২:৫৬

তৈয়বুর রহমান টনি নিউ ইয়র্কঃ-

আবারোও লিখছি নিউ ইয়র্কের অতি পরিচিত সেই মানুষটি-শাহীন রহমানকে নিয়ে। কারন যখনই যাই শাহীনকে দেখতে রিহাব সেন্টারে-তাঁর কান্না, আবেগ আর অভিমান মাখা কন্ঠে ফেলে আসা দিনের কথা শুনে নিজের চোখের পানি সামলানো দায়। আমার মাধ্যমে জানিয়েছে তাঁর পরিচিত বন্ধু বান্ধবরা-যেন তারা তাঁকে নার্সিং হোমে দেখতে যান। বিশেষ করে তাঁর পরিচিত বন্ধু বান্ধব যাদের নিয়ে শাহীনের সুন্দর সময় কেটেছে, আড্ডায় মেতে থাকতেন তাঁর নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান জ্যকসন হাইটসে। নিউইর্য়কের অনেককেই সে দেখতে চান, আমি জানিয়েছি তাদেরকে কিন্তু শাহীন রহমান তেমন কাউকে দেখতে না পেয়ে আবারো আমার মাধ্যমেই অনুরোধ জানিয়েছে তারা যেন একটি বারের জন্য হলেও তাঁকে দেখতে যান।Shaheen_Tony2014

এক রমজানে আমি মুর্শেদা কাঁকনকে নিয়ে গিয়েছিলাম শাহীন রহমানকে দেখতে। তখন তিনি থাকতেন করোনায় অবস্হিত পার্ক টেরেস নামে একটি নার্সৎ হোমে। তখন তিনি আমাদের সাথে চেয়ারে বসে কথা বলেছিলেন। অনুরোধ করেছিলেন বাইরে নিয়ে যেতে। তার কিছুদন পর আমি আর মুর্শেদা কাঁকন নার্সিং হোম থেকে অনুমতি নিয়ে শাহীন রহমানকে হুইল চেয়ারে নিয়ে বাসে করে ঘুড়ে বেড়েয়েছি। ম্যাকডোনাল্সে বসে খেয়েছি। সত্যিই আজ সেই সময়ও অতীত হয়ে গেছে। এরপর বহুবার গিয়েছি শাহীন রহমানকে দেখতে কিন্তু তাঁকে আর বাইরে ঘুড়তে নিয়ে যাওয়ার সুযোগ হয় নাই। আমাদের জীবনে কি সেই সুযোগ আবার আসবে?

দেশের প্রথম অডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ডিসকো রেকর্ডিংয়ের কর্ণধার শাহীন রহমানের কৃত্তিম শ্বাস-প্রশ্বাস যন্ত্রে নিথর দেহে দিন কাটছে নিউ ইয়র্কের জামাইকার সিলবার ক্রিস্ট রিহাব সেন্টারে। ১৯৮৮ সালে ঢাকার জিগাতলা থেকে ডিসকো রেকর্ডিং নিয়ে তিনি চলে আসেন লস এঙ্গেলেসে। ৯০এর শেষদিকে তিনি নিউইয়র্কে আসেন। নিউইয়র্ক-এর সাংস্কৃতিক অঙ্গনেও তিনি অসামান্য অবদান রেখেছেন। শাহীন রহমান দুরারোগ্য রোগ লু গেহ রিগসে আক্রান্ত হয়ে গত কয়েক বছর থেকে নিউইয়র্ক সিটির উক্ত নার্সিং হোমে চিকিৱসাধীন রয়েছেন।Shaheen2_Tony2014

ঢাকার প্রথম অডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান, লস এন্জেলস, নিউ ইয়র্ক এ প্রথম অডিও/ভিডিও এর প্রকাশক, ডিস্কো রেকর্ডিং, ফাস্ট ফুড টক ঝাল মিস্টির সত্বাধিকারী শাহীনুর রহমান অসুস্হ অবস্হায় বেশ কিছুদিন হাসপাতালে অবস্হান করার পর বর্তমানে তাকেঁ ব্রায়ানউড এর ১৪৪-৪৫, ৪৭ এভিনিউ সিলভার ক্রেস্ট সেন্টার নার্সিংহোমে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সেখানে তাঁকে ৫ম তলার ৫৫২নং রুমে রাখা হয়েছে। তাঁর লিভারে পানি জমে যাওয়ায় শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিল। হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তারের নিকট থেকে জানা গিয়েছে যে তাঁর শারিরীক অবস্হা বর্তমানে একটু ভাল, কৃত্তিম শ্বাস-প্রশ্বাস যন্ত্র লাগানোর কারনে কথা বলতে পারছেন না।

গত শনিবার সন্ধ্যায় প্রতিবেদক হাসপাতালে শাহীন রহমানকে দেখতে গিয়েছিলেন। মুখ থেকে ব্রিথিং টিউব সরিয়ে তিনি কথা বললেন খুব কষ্ট করে। তিনি প্রতিবেদকের মাধ্যমে সবার নিকট দোয়া কমনা করেছেন। শাহীন রহমান বলেন-“সবার কাছে আমি অনেক কৃতজ্ঞ যে, আমি সবার দোয়ার বরকতে এবং সর্বোপরি মহান আল্লাহতালার অশেষ রহমতে এখনোও বেচেঁ আছি। সবাই আমার জন্য ও আমার পরিবারের সবার জন্য দোয়া করবেন, আর আমাকে আপনারা সবাই দেখতে আসবেন। আমি যে নার্সিং হোমে আছি সেখানে যে কোনো সময়ই আসতে পারবেন। ২৪ ঘন্টাই এই নার্সিং হোমে ভিজিটার রোগী দেখতে আসতে পারবে”। শাহীন রহমান প্রতিবেদককে জানালেন পত্রিকার মাধ্যমে সবার কাছে আমর একটাই কামনা এবং চাওয়া আপনারা সবাই আসবেন আমাকে দেখতে। আমি সবাইকে আবার দেখতে চাই”। অস্পষ্ট ভাষায় শাহীন রহমান এই কথা গুলো বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

 

MD Majumder
By MD Majumder জুলাই ২১, ২০১৪ ০২:৫৬
Write a comment

No Comments

No Comments Yet!

Let me tell You a sad story ! There are no comments yet, but You can be first one to comment this article.

Write a comment
View comments

Write a comment

Your e-mail address will not be published.
Required fields are marked*

সর্বশেষ খবর

আজকের দিন-তারিখ

  • বৃহস্পতিবার ( রাত ৩:৩০ )
  • ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
  • ২৯ জিলহজ্জ, ১৪৩৮
  • ৬ আশ্বিন, ১৪২৪ ( শরৎকাল )

বাংলা ক্যালেন্ডার

IMG_11152014_10_DEBDUT!